ইমারজেন্সি ট্যাক্স এর সরল সমাধান

0
487

ট্যাক্স বিষয়ক বিষয়ে যাদের সাথেই কথা হয়েছে বেশিরভাগই ইমারজেন্সি ট্যাক্স এর বিষয়ে জানতে চেয়েছেন। অনেকে তো রীতিমত খুবই চিন্তিত যে অনেক বেশি ট্যাক্স দিয়ে যাচ্ছেন। যদিও ইমারজেন্সি ট্যাক্স জটিল কোন বিষয় না, তারপরেও অনেকের কথা মাথায় রেখে এই আর্টিকেলটি লেখা।

আপনি আয়ারল্যান্ডে এসে প্রথম জবে ঢুকেছেন? আপনি নতুন জব শুরু করেছেন? আপনি বর্তমান জবের পাশাপাশি আরেকটি জব শুরু করেছেন? তাহলে আপনার ইমারজেন্সি ট্যাক্সের ব্যাপারে ধারনা থাকা প্রয়োজন।

ইমারজেন্সি ট্যাক্স কি?

আয়ারল্যান্ডে প্রথম জব, নতুন জব কিংবা ডাবল জব করার কারণে আপনি হয়ত লক্ষ্য করবেন আপনার ট্যাক্স অতিরিক্ত পরিমাণ বেশি কাটতেছে। এই অতিরিক্ত ট্যাক্স আর কিছুই নয়, তা হচ্ছে ইমারজেন্সি ট্যাক্স। ইমারজেন্সি ট্যাক্স মানে হচ্ছে আপনি হায়ার বা অতিরিক্ত রেটে ট্যাক্স এবং USC দিচ্ছেন। যা যুগপৎভাবে আপনার ট্যাক্সের পরিমাণকে বাড়িয়ে আয়কে কমিয়ে দিচ্ছে।

কেন ইমারজেন্সি ট্যাক্স কাটে?

ইমারজেন্সি ট্যাক্স কেন কাটে, তার আগে বুঝতে হবে আপনার আয়ের সাথে রেভিনিউ কিভাবে যুক্ত হবে। ধরুন আপনি আয়ারল্যান্ডে প্রথম এসেছেন, নতুন জব শুরু করেছেন বা করবেন। প্রথম আপনার যে জিনিসটা দরকার হবে তা হচ্ছে PPS নাম্বার। সেই PPS নাম্বার দিয়ে আপনাকে রেভিনিউতে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে, সেই সাথে নতুন এমপ্লয়ার (নিয়োগকর্তা) কে রেভভিনিউতে যুক্ত করতে হবে অথবা এমপ্লয়ার কে PPS নাম্বার দিতে হবে এবং এমপ্লয়ারকে তা রেজিস্ট্রেশন করে নিতে হবে। কিন্তু একবারে প্রথম জবে রেভিনিউকে অবহিত করা অবশ্যই বাঞ্ছনীয় কারণ আপনি আগে কখনো আয়ারল্যান্ডে জব করে নাই, সুতরাং আপনার কোন রেকর্ড রেভিনিউতে নাই, যে কোন রেটে আপনার ট্যাক্স ধার্য হবে কিংবা আপনার ট্যাক্স ক্রেডিট ধার্য হবে।

দ্বিতীয়ত হচ্ছে, প্রত্যেক এমপ্লয়ার তার পে-রোল রান করার জন্য যে সিস্টেম বা সফটওয়ার ব্যবহার করে তা রেভিনিউর সাথে সরাসরি সংযুক্ত। কোম্পানি প্রত্যেকবার পে-রোল রান করার আগে RPN আপডেট করে নেয়। RPN হল ‘রেভিনিউ পে-রোল নোটিফিকেশন’, যার মাধ্যমে রেভিনিউর সাথে সংযুক্ত প্রত্যেক কর্মচারীর তথ্য কোম্পানির পে-রোল সফটওয়্যারে আপডেট হয়ে যায়। এখন আপনার যদি কোন তথ্যই রেভিনিউতে না থাকলে পে-রোল সফটওয়্যার সে RPN রিট্রিভ করতে পারবেনা, সুতরাং আপনার উপর ইমারজেন্সি ট্যাক্স ধার্য হবে।

সুতরাং রেভিনিউতে প্রাপ্ত তথ্যের উপর ভিত্তি করেই কি রেটে ট্যাক্স কাটবে অথবা কি পরিমাণ ট্যাক্স ক্রেডিট প্রয়োগ হবে তা নির্ধারিত হয়। কোম্পানির RPN যদি রেভিনিউ থেকে কত রেটে ট্যাক্স কাটবে অথবা ট্যাক্স ক্রেডিট কত হবে তা নির্ধারণ করতে না পারে তাহলে বেশি রেটের ট্যাক্সই ধার্য হবে।

ট্যাক্সের বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুনঃ https://irishbanglatimes.com/personal-tax-free-helpline/

ইমারজেন্সি ট্যাক্স এড়ানোর উপায় কি?

আপনাকে কোন ইমারজেন্সি ট্যাক্সের কবলে পড়তে হবেনা যদি কিছু পদক্ষেপ অনুসরণ করেন। যেমনঃ আপনি যদি আয়ারল্যান্ডে নতুন হন এবং নতুন জব শুরু করতে যাবেন, সে ক্ষেত্রে PPS নাম্বার পাওয়ার সাথে সাথেই রেভিনিউতে রেজিস্ট্রেশন করে নিবেন। দ্বিতীয়ত, নতুন জবে ঢুকার সাথে সাথে রেভিনিউকে অবহিত করবেন এবং www.revenue.ie এ ঢুকে myAccount এ গিয়ে দেখবেন আপনার নতুন কোম্পানি রেভিনিউতে যুক্ত হয়েছে কিনা, সাথে দেখবেন আপনার নামে ট্যাক্স ক্রেডিট সার্টিফিকেট ইস্যু হয়েছে কিনা, তাহলেই বুঝবেন আপনার রেজিস্ট্রেশন ঠিকভাবে সম্পন্ন হয়েছে এবং আপনার আর ইমারজেন্সি ট্যাক্স কাটবে না। ট্যাক্স ক্রেডিট সার্টিফিকেটেই দেখতে পারবেন আপনার ট্যাক্স ক্রেডিট কত এবং এই তথ্যই কোম্পানির পে-রোলে দেখাবে।

বর্তমানে একটা জব পরিবর্তন করে আরেকটা জবে ঢুকলে, কিংবা একই সাথে একাধিক জব করলে রেভিনিউকে অবহিত না করলেও চলে। কারণ নতুন কোম্পানি যখন আপনার তথ্য তার পেরোলে আপডেট করবে তখন তা রেভিনিউতেও আপডেট হয়ে যাবে। তারপরেও নিশ্চিত হওয়ার জন্য আপনি রেভিনিউর myAccount এ ঢুকে চেক করে নিতে পারেন। যদি আপনার নতুন কোম্পানির তথ্য না দেখতে পান তাহলে, রেভিনিউকে অবহিত করুন, অন্যথায় ইমারজেন্সি ট্যাক্স এর খড়ায় পড়া লাগবে।

মনে রাখবেন, একটি কোম্পানিতে জব করলে যে ট্যাক্স ক্রেডিট একাধিক কোম্পানিতে হলেও একই ট্যাক্স ক্রেডিট থাকবে। তবে আপনি চাইলে কোন কোম্পানিতে কত ট্যাক্স ক্রেডিট রাখতে চান তা নিজে করে নিতে পারবেন।

ইমারজেন্সি ট্যাক্স ইতিমধ্যে দিয়ে থাকলে করণীয় কি?

নতুন জবে ঢুকলে উপরোক্ত সব পদক্ষেপ অনুসরণ করলেও অনেক সময় তথ্য রেভিনিউতে আপডেট হতে একটু সময় লাগতে পারে। কিন্তু ততদিনে হয়ত আপনি কাজ শুরু করে দিয়েছেন এবং প্রথম সপ্তাহ বা মাসের বেতন পেয়ে গিয়েছেন। অথবা উপরোক্ত কোন পদক্ষেপ এখনো নেয়া হয়নি বিধায় ইমারজেন্সি ট্যাক্স কেটে নিয়েছে। অনেকে তো কয়েক মাস এমন কি বছরও ইমারজেন্সি ট্যাক্স দিয়ে যাচ্ছেন। সেক্ষেত্রে ঘাবড়ানোর কারণ নেই।

আপনি যদি ইমারজেন্সি ট্যাক্স এর মাধ্যমে আপনার যতটুকু ট্যাক্স দেয়ার কথা তার থেকে বেশি দিয়ে থাকেন তাহলে রেভিনিউ তা ফেরত দিয়ে দিবে। সাধারণত রেভিনিউকে জানানোর পরে রেভিনিউতে যখন আপডেটেড তথ্য আপডেট হবে তখন থেকে আর ইমারজেন্সি ট্যাক্স কাটবেনা এবং অতিরিক্ত ট্যাক্স পরবর্তী পে-স্লিপ এ আপডেট করে দিবে এবং আসন্ন বেতনের সাথে ওভারপেমেন্ট ট্যাক্স ফেরত দিয়ে দিবে। এবং তা একবারে না হলেও কয়েক সপ্তাহ অথবা মাসে তা ফেরত দিতে পারে।

তারপরেও যদি ইমারজেন্সি ট্যাক্স বছরের মধ্যে ফেরত না পাওয়া যায় অথবা যদি মনে করেন কিছু ট্যাক্স এখনো ফেরত বাকি আছে, তবে তা বাৎসরিক রিটার্নের সাথে পেয়ে যাবেন। বাৎসরিক রিটার্নেই সব হিসেব ক্যালকুলেট করে যদি ট্যাক্স পাওনা থাকেন তা ফেরত পাবেন, যদি ট্যাক্স কম দিয়ে থাকেন তাহলে তা পরবর্তী বছরে ট্যাক্স ক্রেডিটের সাথে এডজাস্ট হয়ে যাবে।

শেষকথা

মনে রাখবেন রেভিনিউ যতটুকু ট্যাক্স কাটার তাই কাটবে। যদি বেশি কেটে থাকে তাহলে তা ফেরতযোগ্য। এখন রেভিনিউ অনেকটা অটোমেটেড। তারপরেও নিয়মিত অ্যাকাউন্ট চেক করা, ট্যাক্স ক্রেডিট দেখা, মাঝে মধ্যে হিসেব করে দেখা ট্যাক্স বেশি দিচ্ছেন না তো, বাৎসরিক রিটার্ন জমা দেয়া ইত্যাদি চেক করে নেয়া ভালো। বাৎসরিক রিটার্ন জমা দিতে সবাইকে উৎসাহিত করি। কারণ বাৎসরিক রিটার্নেই সম্ভব আয়ের এবং ট্যাক্সের নিখুঁত হিসেব পাওয়া। ফেরতযোগ্য সব ট্যাক্সই বাৎসরিক রিটার্ন জমা দেয়ার মাধ্যমে সম্ভব।

ফ্রি হেল্পলাইন

আশা করি ইমারজেন্সি ট্যাক্স এর ব্যাপারে আর দ্বিধাদ্বন্দ্ব থাকার কথা নয়। তারপরেও কিছু বুঝতে অসুবিধা হলে অথবা জানার থাকলে, আমাদের ফ্রি হেল্পলাইনে যোগাযোগ করুন।

Email: newton.acca@gmail.com
Mobile: 0838732429 (please text first)
Facebook: www.facebook.com/TheIrishBanglaTimes

Facebook Comments Box