ব্রিটিশ বাংলাদেশী ডাক্তার ফারজানা হুসেইন এর NHS থেকে বিশেষ সন্মাননা

0
352
Dr Farzana

ওমর এফ নিউটনঃ জুলাই এর ৫ তারিখে NHS (National Health Service – UK)এর ৭২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী। এ উপলক্ষে NHS তার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীকে স্মরণীয় করে রাখতে ১২ জন কে স্বাস্থ্য বিভাগে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ পোট্রেইট বা চিত্রকর্ম সংগ্রহ করা হয়। চিত্রকর্ম সংগ্রহ করে বিখ্যাত ফটোগ্রাপার রানকিন। যা ইংল্যান্ডের গুরুত্বপূর্ণ জায়গা যেমন বাস স্টপ, বিলবোর্ড, রাস্তার পাশে, নামকরা স্থানসমূহে প্রদর্শিত হবে। এবং বিশ্ব বিখ্যাত পিকাডিলি সার্কাসের বিলবোর্ডেও পোট্রেইটগুলা শোভা পাচ্ছে।

এই ১২ জন বিশেষ ব্যক্তির মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশী বংশদূত ডাক্তার ফারজানা হুসেইন। যিনি নিউহামের প্লাসটো (Plaistow) এর প্রজেক্ট সার্জারির জেনারেল প্রাক্টিশনার (GP)। ২০১৯ সালে যিনি NHS এর ‘’GP of the year’’ নির্বাচিত হন।

এ পেশায় আসার পেছনে অনুপ্রেরণা ডাঃ ফারজানা হুসেইন এর বাবা ও আরো কিছু ঘটনা। তাঁর বাবাও বহু বছর NHS কে সেবা প্রদান করেন। তিনি একজন এনেস্থেটিস্ট ছিলেন। তাঁর বাবা ১৯৭০ সালে বাংলাদেশ (তৎকালীনপূর্ব পাকিস্থান) থেকে স্কলারশিপ নিয়ে এনেস্থেটিস্ট এর উপর পোষ্ট গ্রাজুয়েশন করতে আসেন। বাবার অনুপ্রেরণায় তিনি এই পেশায় আসেন।

ডাঃ ফারজানা হুসেইনের বয়স যখন ১৯ তখন তিনি University of Wells এ মেডিকেল এর ছাত্রী। ঐ সময় তাঁর মা খুবই অসুস্থ ছিলেন, তিনি ২৫০ মাইল জার্নি করে মা কে দেখতে যেতেন। তখন তিনি দ্বিধাদ্বন্দ্বে ছিলেন মা কে দেখতে পাশে থাকবেন, নাকি ক্লাসে ফিরে যাবেন? তাঁর মা বললেন, ক্লাসে ফিরে যেতে, কারণ তাঁকে ডাক্তার হতেই হবে, যাতে করে সে অন্যদের চিকিৎসা সেবা দিতে পারে। এতেই মা খুশি হবেন। এর ৫ দিন পরেই তাঁর মা মারা যান।

এর পর থেকে দুই দশক তিনি নিরলসভাবে চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। মানুষকে সেবাটাই যেন তাঁর জন্য মুখ্য বিষয় হয়ে উঠেছে। তিনি বলেন, ‘’যখন আমি কাউকে চিকিৎসা দেই, তখন মনে করি তারাও কারো না কারো পরিবার’’।

চিকিৎসাক্ষেত্রে এশিয়ানদের ভূমিকা কি, এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বলেন, ‘’NHS সত্যিকার অর্থে মাইগ্রেন্টদের থেকে উপকারিত হচ্ছে’’।

সত্যই ডাঃ ফারজানা হুসাইনরাই সত্যিকার হিরো। যারা নিজেকে উৎসর্গ করে দিচ্ছেন অন্যের সেবায়। অভিবাসী এবং বাংলাদেশী হিসেবে আমাদের জন্যও গর্বের। যাদের কল্যাণে, যাদের সুনামের প্রেক্ষিতে আরো বহু অভিবাসীদের সেবা প্রদানের দরজা খুলে যাবে। হোক সেটা স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে কিংবা ভিন্ন কোন ক্ষেত্রে।

Facebook Comments Box