৮৩ হাজার কোটি ডলারের পুনরুদ্ধার প্যাকেজ ঘোষণা ইইউর

0
310

 ৭৫০ বিলিয়ন বা ৭৫ হাজার কোটি ইউরোর অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার প্যাকেজ ইতোমধ্যে ঘোষণা করেছে ইউরোপীয় কমিশন (ইসি)  । এই অর্থ ৮২ হাজার ৬৫০ কোটি মার্কিন ডলার অর্থাৎ যা বাংলাদেশের প্রায়  সাত লাখ কোটি টাকার মতো। সংকটপূর্ণ এই সময়ে দেশগুলোকে সাহায্য  করতেই এই উদ্দ্যেগ । বিগত  শতকের ত্রিশের দশকের মহামন্দার পরে সবচেয়ে বড় অর্থনৈতিক মন্দার পরিস্থিতিতে এই প্যাকেজ ঘোষণা করা হল, যাতে সদস্য দেশগুলো সঙ্কট কাটিয়ে উঠতে পারে।

 করোনা ভাইরাসের কারণে  পুরো পৃথিবী জুড়ে অচলাবস্থা বিরাজ করছে । বাদ নেই ইউরোপ ও ।  ইউরোপের ২৭ জাতির জোট ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সদস্য দেশগুলো কভিড– ১৯ বা করোনাভাইরাসে মারাত্মকভাবে আক্রান্ত। এর মধ্যে আগে থেকেই  বড় অংকের ঋণের ভারে জর্জরিত হয়ে আছে ইউরোপের দক্ষিণাঞ্চলীয়  দেশগুলো । তবে নতুন আর্থিক প্যাকেজ থেকে ইইউর সব সদস্য দেশকে অনুদানের পাশাপাশি ৩০ বছর মেয়াদে ঋণও  দেওয়া হবে।

 নেদারল্যান্ডসে, অস্ট্রিয়া , ডেনমার্ক ও সুইডেন অবশ্য তুলনামূলক গরিব দেশগুলোকে অনুদানের পরিবর্তে ন্যূনতম সুদে ঋণ দেওয়ার কথা বলেছে।

ইউরোপের বৃহত্তম ও বিশ্বের চতুর্থ বৃহৎ অর্থনীতি জার্মানি পুঁজিবাজার থেকে নতুন এই অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার প্যাকেজের অর্থ সংগ্রহের আহ্বান জানিয়েছে।  

 গত বুধবার ইইউর নির্বাহী কমিশন ইসির প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডার লিয়েন  এই  প্যাকেজটি ঘোষণা করেন। এই প্যাকেজকে ‘ইউরোপের ঘুরে দাঁড়ানোর ভিত্তি’ বলে আখ্যায়িত করেছেন সংস্থাটির ইকোনমি কমিশনার পাওলো জেন্টিলনি । আর ইসি প্যাকেজটিকে ‘পরবর্তী প্রজন্মের ইইউ’ হিসেবে অভিহিত করেছে।ইইউর ২৭ সদস্যের সবার সমর্থন ছাড়া  এই উদ্যোগ এগিয়ে নেওয়া সম্ভব নয়।

তবে ইইউর প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন প্যাকেজের অর্থ ব্যবহারের বিস্তারিত পরবর্তীতে তুলে ধরবেন। তিনি জানাবেন  কীভাবে এই অর্থ ইইউর ২০২১–২৭ সালের বাজেটের সঙ্গে সমন্বয় করা হবে সে। তবে তহবিলটির অর্থ ব্যবহারে বিনিয়োগ ও সংস্কারেই বেশি জোর দেওয়া হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বিবিসি ও সিএনবিসি সূত্র থেকে জানা যায় ইইউর নেতারা আগামী ১৮ জুন ভিডিও কলের মাধ্যমে অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার প্যাকেজ ব্যবহারের বিস্তারিত ঠিক করবেন বলে মনে করা হচ্ছে। তবে সদস্যদের নতুন যেকোনো আর্থিক সহায়তা করতে হলে তা ইউরোপীয় পার্লামেন্ট অনুমোদন করিয়ে নিতে হবে। 

Facebook Comments Box