“স্টাইপেন্ডিয়াম হাঙ্গেরিকাম স্কলারশিপ” – হাঙ্গেরিতে বিনামূল্যে অধ্যয়নের অপূর্ব সুযোগ

0
178

হাঙ্গেরি ইউরোপের সমৃদ্ধ একটি দেশ। ২০১৩ সাল থেকে হাঙ্গেরি সরকার ২০১৩ সাল থেকে ‘স্টাইপেন্ডিয়াম হাঙ্গেরিকাম স্কলারশিপ’ দিয়ে আসছে। ২০১৯ সাল থেকে বাংলাদেশে চালু হয়েছে এই স্কলারশিপটি। বিভিন্ন দেশের শিক্ষার্থীরা এই স্কলারশিপের আওতায় আন্ডারগ্র্যাজুয়েট, গ্র্যাজুয়েট, ওয়ান টায়ার মাস্টার্স ও ডক্টরাল নিয়ে পড়তে পারবেন। বাংলাদেশ থেকে আন্ডারগ্র্যজুয়েট ও মাস্টার্স পর্যায়ে এই স্কলারশিপ দেওয়া হয়।

যে বিষয়গুলতে স্কলারশিপ পাওয়া যাবে

ব্যাচেলর, মাস্টার’স এবং পিএইচডি প্রোগ্রামে স্কলারশিপ নেয়া যাবে। তন্মদ্ধে উল্লেখযোগ্য বিষয় যেমনঃ মেডিসিন, ফার্মেসী, ডেন্টিস্ট্রি, আর্কিটেকচার, আইন, ভেটেরিনারি সার্জারি, ফরেস্ট্রি ইঞ্জিন্যারিং ইত্যাদি বিষয়ে পড়ার সুযোগ রয়েছে।

স্টাইপেন্ডিয়াম হাঙ্গেরিকাম স্কলারশিপের সুবিধাসমূহঃ

১। টিউশন ফি সম্পূর্ণ ফ্রি,
২।ব্যাচেলর ও মাস্টার্স প্রোগ্রামে ১২০ ইউরো ।আর, পিএইচডি প্রোগ্রামে প্রথম ৪ সেমিস্টার ৩৯০ ইউরো ও পরবর্তী চার সেমিস্টার ৫০০ ইউরো),
৩। ক্যাম্পাসের ডরমিটিরিতে বিনা ভাতায় থাকার ব্যবস্থা। উল্লেখ্য, ডরমিটরিতে না থাকতে চাইলে মাসে বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ১২ হাজার টাকা করে দেয়া হবে বাড়ি ভাড়া ভাতা বাবদ,
৪। মেডিকেল ইনস্যুরেন্স (স্বাস্থ্যবিমা) – প্রতি বছর সর্বোচ্চ ২৭৫ ইউরো,
৫। সপ্তাহে ২০ ঘন্টা কাজ করার সুযোগ।

এছাড়াও ইচ্ছে করলে হাঙ্গেরির কাছের দেশ ফ্রান্স, ইতালি, পর্তুগালে গিয়ে আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে খুব সহজেই বসবাস করার সুযোগ পাওয়া যায়।

আবেদনের নিয়মাবলী ও যোগ্যতা

১। বাংলাদেশী নাগরিক হতে হবে
২। অবশ্যই ১৮ বছর বয়স হতে হবে
৩। ন্যূনতম উচ্চমাধ্যমিক পাস
৪। আইইএলটিএস স্কোর ন্যূনতম ব্যান্ড স্কোর ৫ থাকতে হবে। কিছু ক্ষেত্রে আইইএলটিএসের প্রয়োজন হয় না।
৫। আবেদনকৃত প্রোগ্রামের Entry Qualification পূরণ করতে হবে।
৬। স্টাইপেন্ডিয়াম হাঙ্গেরিকামের ওয়েবসাইট হতে আবেদন ফরম সংগ্রহ করে আবেদন করা যাবে।
৭। বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কাছে অনলাইন আবেদনের পাশাপাশি ও যাবতীয় শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ, মার্কশিট, পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেটসহ অন্যান্য কাগজপত্রের হার্ডকপিও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে জমা দিতে হবে।
৮। আন্ডারগ্র্যাজুয়েট, গ্র্যাজুয়েট ও ডক্টরাল—তিনটির যেকোনো একটিতে আবেদন করতে পারবেন শিক্ষার্থীরা। একাধিক আবেদন করলে আবেদনপত্র বাতিল বলে গণ্য হবে।

আবেদন করতে এখানে একাউন্ট খুলে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। এরপর শিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রদত্ত এই লিংকে অনলাইনে আবেদন করতে হবে।  অনলাইন আবেদন সম্পন্ন করার পর আবেদনের কপি সহ প্রয়োজনীয় সকল ডকুমেন্ট নিচের ঠিকানায় জমা দিতে হবে। 

প্রাপকের ঠিকানাঃ 
যুগ্নসচিব (বৃত্তি)
মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ
শিক্ষা মন্ত্রণালয়,
বাংলাদেশ সচিবালয় , ঢাকা।

হাঙ্গেরির বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতো প্রতি বছর ২ বা ৩ বার ভর্তির জন্য আবেদন করা যায়। এগুলো হলো এপ্রিল থেকে জুলাই, জানুয়ারি থেকে ফেব্রুয়ারি এবং অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর।

Facebook Comments Box