সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উথিত মন্তব্যে ABAI এর ব্যাখ্যা

0
363

কিছুদিন আগে আবাই আয়োজিত বৃহৎ পরিসরে সফলভাবে সম্পন্ন অভিষেক অনুষ্ঠানকে ঘিরে বেশ কিছু আলোচনা ও সমালোচনার জন্ম নেয়। সে সব আলোচনা ও সমালোচনা মানুষের মনে বিভ্রান্তির উদ্রেক ঘটাতে এবং আবাইকে ভুল যেন কেউ না বোঝে তার প্রেক্ষিতে আবাই এর সাধারণ সম্পাদক জনাব আনোয়ারুল হক আনোয়ার তাঁর নিজস্ব ফেইসবুক প্রোফাইল থেকে বিবৃতি প্রদান করেন।

জনাব আনোয়ারুল হক আনোয়ার ফেইসবুক প্রোফাইল থেকে বিবৃতিটি হুবহু তুলে ধরা হল।

লিমেরিক, আয়ারল্যান্ড থেকে
১৮ই সেপ্টেম্বর ২০২৩

শ্রদ্ধেয় আয়ারল্যান্ড প্রবাসী ভাই ও বোনেরা,

বিনম্র চিত্তে আমাদের সালাম গ্রহণ করুন। গত ১০ই সেপ্টেম্বর ২০২৩ রবিবার অল বাংলাদেশি এসোসিয়েশন অফ আয়ারল্যান্ড (আবাই) এর অভিষেক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সকল কাউন্টি থেকে পরিবার পরিজন নিয়ে উপস্থিত হয়ে অনুষ্ঠানকে সফলতা প্রদান করার জন্য আপনাদের জানাচ্ছি আন্তরিক অভিনন্দন এবং কৃতজ্ঞতা। এই অনুষ্ঠানকে সফলতা প্রদানের জন্য যারা আর্থিক সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছিলেন, তাদের এই অবদান স্মরণীয় হয়ে থাকবে, তাদের প্রতিও আমাদের আন্তরিক কৃতজ্ঞতা। বাংলাদেশের মূল ধারা এবং স্থানীয় মিডিয়া কর্মীদের প্রতিও রইলো অভিবাদন ও কৃতজ্ঞতা। অনুষ্ঠানের সফল প্রচারে তাদের অংশগ্রহণ ও অনুষ্ঠানকে উচ্চতা দিয়েছে। যারা এই অনুষ্ঠান স্থলে বিভিন্ন স্টল দিয়েছিলেন, তাদের প্রতিও রইলো ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা। আবাই কার্যকারী কমিটির সকল সদস্যবৃন্দ, যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমের বিনিময়ে একটি সফল অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে এবং কমিটির বাইরে থেকেও যারা আমাদেরকে সহযোগিতা করেছেন তাদের প্রতি ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। আশা করি আগামী দিনগুলোতে আপনাদের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে এবং আবাই একটি শক্তিশালী সংগঠন হিসেবে আয়ারল্যান্ডে প্রতিষ্ঠিত হবে।

প্রথমেই আমি এই অনুষ্ঠানের সফলতার দিকগুলো আপনাদের সামনে তুলে ধরতে চাই।

প্রথমত: এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে আয়ারল্যান্ড সরকারের একজন প্রতিমন্ত্রী এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন একজন সিনেটর, এরা দুজনই বাংলাদেশ এবং প্রবাসী বাংলাদেশীদের সম্পর্কে ইতিবাচক ধারনা নিয়ে গিয়েছেন এবং উনারা দুইজনই প্রবাসে আমাদের সমস্যাগুলো জেনেছেন এবং সার্বিক সহযোগিতার অঙ্গীকার করেছেন। মন্ত্রী তার বক্তৃতায় এক পর্য্যায়ে প্রতিবছর এক হাজার ওয়ার্ক পারমিট প্রদানের ঘোষণা দেন এবং এদের ভিসা প্রাপ্তিকে সহজ করার অঙ্গীকার করেন।

দ্বিতীয় যে ইতিবাচক দিক ছিল তা হচ্ছে আমাদের কমিউনিটি সদস্যদের সক্রিয় অংশগ্রহণ, এই অংশগ্রহণ ছিল ইতিবাচক, যা দেখে মন্ত্রী এবং সিনেটর উভয়েই আমাদের কমিউনিটি সম্পর্কে ইতিবাচক ধারনা নিয়ে গিয়েছেন। তৃতীয় সফলতা হিসেবে যা ছিল তা হচ্ছে সেই অনুষ্ঠানে আমরা একটি উপদেষ্টা পরিষদ ঘোষণা করতে পেরেছি। আমরা আশা করি এই উপদেষ্টা পরিষদ আগামী দিনে আমাদের পথ চলায় পথ প্রদর্শক হিসেবে ভূমিকা পালন করতে পারবেন। চতুর্থ যে সফলতা ছিল সেটা একটা ঐতিহাসিক ঘটনা বলেই আমরা মনে করি। আয়ারল্যান্ডে বাংলাদেশ কমিউনিটির কোন অনুষ্ঠানে এই প্রথমবারের মত বাংলাদেশের দুজন স্বনামধন্য শিল্পী সংগীত পরিবেশন করেছেন, আমরা মনে করি দর্শক এবং শ্রোতা হিসেবে আমাদের স্থানীয় শিল্পীসহ বাংলাদেশী শিল্পীদের মনোজ্ঞ পরিবেশন সকলেই প্রাণভরে উপভোগ করেছেন। আরেকটি বিষয় বলা প্রয়োজন মনে করছি, সেটা হচ্ছে র‍্যাফল ড্র। র‍্যাফল ড্র’র পুরষ্কার প্রদানে যারা অংশগ্রহণ করেছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা যে এই ড্র’র মাধ্যমে আবাইয়ের কিছুটা অর্থনৈতিক সহায়তা অর্জিত হয়েছে।

আমি আরও কিছু কথা আপনাদের সামনে উপস্থাপন করা প্রয়োজন মনে করছি। উক্ত অনুষ্ঠানকে ঘিরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কিছু মন্তব্য কিছু বিভ্রান্তির উদ্রেক করতে পারে। সে জন্য আয়ারল্যান্ডে বসবাসরত বাংলাদেশী ভাই ও বোনদের মতামতের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে, সোশ্যাল মিডিয়া থেকে কিছু মন্তব্যের ভিত্তিতে আবাইয়ের পক্ষ থেকে আপনাদের জ্ঞাতার্থে কিছু ব্যাখ্যা উপস্থাপন করা হলঃ

১। লোগো বিভ্রাটঃ ২০১১ সাল থেকে যে লোগো আবাই কর্তৃক ব্যাবহৃত হয়ে আসছিলো, আমরা পরীক্ষা নিরীক্ষা করে দেখেছি সেই লোগোতে কোন ভুল ছিল বলে আমরা পাইনি। এমতাবস্থায় সোশ্যাল মিডিয়ায় এবং কখনো কখনো কারো অজান্তেই একটি ভুল লোগোকে আমাদের অফিসিয়াল লোগো হিসাবে বিবেচনা করে কেউ কেউ ব্যাবহার করেছেন। কিন্তু আমরা কখনোই অফিসিয়াল লোগো হিসেবে ভুল লোগোটিকে ব্যবহার করিনি। সম্প্রতি আবাই এর অভিষেক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে আবাই কার্যকরী কমিটির সদস্যবৃন্দ প্রত্যুষে অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত হন এবং ভুলটি দৃষ্টিতে আসে এবং তৎক্ষণাৎ আমাদের প্রেরিত লোগো সম্বলিত ডিজাইনটি সাইনটোলজি কর্তৃপক্ষের কাছে উপস্থাপন করা হয় এবং ভুলের ব্যাখ্যা চাওয়া হয়। তারা দুঃখ প্রকাশ করেন এবং ভুলের কারণ এবং অধিকতর তদন্তের জন্য তারা আমাদের কাছে সময় চান। সময় স্বল্পতার জন্য ঐ মহুর্তে লোগোটি সংশোধন করা সম্ভবপর হয়নি। ভুলটি অনিচ্ছাকৃত সত্ত্বেও আবাই এর দায় এড়াতে পারে না। ইতিমধ্যে আবাই এর সম্মানিত সভাপতি ডাঃ জিন্নুরাইন জায়গীরদার এব্যাপারে সামাজিক মাধ্যমে দুঃখ প্রকাশ করেছেন। দ্বিতীয়বারের মতো আবাই এর পক্ষ থেকে সকলের কাছে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখার জন্য বিনীতভাবে অনুরোধ করছি।

২। বাংলাদেশ হাই কমিশনকে আমন্ত্রণ জানানো প্রেক্ষিতেঃ গত ৫ই জুন আবাই এর পক্ষ থেকে মান্যবর বাংলাদেশ হাই কমিশনার মহোদয়কে এই অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে নিমন্ত্রণ পত্র পাঠানো হয় এবং হাইকমিশন থেকে ৭ দিনের মধ্যে তাদের সিদ্ধান্ত জানানো হবে বলে আমাদেরকে জানানো হয়। কিন্তু দুঃখের বিষয় দুই মাস বিগত হওয়ার পরেও আমরা কোন উত্তর না পেয়ে পুনরায় গত ২৫ শে আগস্ট দ্বিতীয় বারের মত নিমন্ত্রণ পত্র পাঠানো হয় এবং টেলিফোনে কথা বলার সময় প্রার্থনা করা হয়। অত্যন্ত দুঃখের বিষয় যে, আমরা তাদের থেকে কোন ইতিবাচক উত্তর শেষ মুহুর্ত পর্য্যন্ত পাইনি। সুতরাং হাইকমিশনারের উপস্থিতি প্রত্যাশিত ছিল কিন্তু তা প্রতিফলিত হয় নাই। বাংলাদেশ হাই কমিশনারকে বিশেষ অতিথি হিসাবে আমন্ত্রণ জানিয়ে আবাই তার দায়িত্ব ঠিকই ই পালন করেছে।

৩। রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বঃ আয়ারল্যান্ডে বাংলাদেশী রাজনৈতিক দলের, অর্থাৎ আওয়ামীলীগ এবং বিএনপি থেকে দুইজন করে (আয়ারল্যান্ড আওয়ামী লীগের আহবায়ক ও সদস্য সচিব এবং বিএনপি’র সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক) আনুষ্ঠানিকভাবে পত্রের মাধ্যমে নিমন্ত্রণ পাঠানো হয়েছিল এবং তাদের দলীয় সকল নেতাকর্মীদের দাওয়াত নিশ্চিত করা হয়েছিল উক্ত নিমন্ত্রণ পত্রের মাধ্যমে। আবাই একটি অরাজনৈতিক সামাজিক প্রতিষ্ঠান এবং আবাইকে রাজনীতিমুক্ত রাখতে আমরা বদ্ধপরিকর।

৪। নিমন্ত্রণঃ আয়ারল্যান্ডের প্রতিটি কাউন্টি কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে আনুষ্ঠানিকভাবে নিমন্ত্রণ পত্র পাঠানো হয়েছে এবং উক্ত পত্রের মাধ্যমে তাদের কমিটির সকল সদস্যকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে এবং আয়ারল্যান্ডে অবস্থিত অন্যান্য সকল বাংলাদেশি অর্গানাইজেশনকে অফিসিয়ালি নিমন্ত্রণপত্র দেয়া হয়েছে। আয়ারল্যান্ডে অবস্থিত সকল বাংলাদেশিদেরকে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে নিমন্ত্রণ অব্যাহত ছিল। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন পর্য্যায়ের অতিথিদের জন্য সুনির্দিষ্ট বসার আসনের ব্যাবস্থ্যাও রাখা হয়েছিলো।

৫। উপস্থাপক, উপস্থাপিকা ও শিল্পীঃ অনুষ্ঠানে সঞ্চালনায় উপস্থাপক এবং উপস্থাপিকা সংযুক্ত থাকবেন এটাই স্বাভাবিক। শেষ মুহূর্তে বিশেষ কারণ বশত: নির্ধারিত উপস্থাপিকা উপস্থিত হতে পারেন নাই। এছাড়া অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত বিশেষ অতিথিও একজন নারী ছিলেন। অনুষ্ঠানে অতিথিদের ফুল দিয়ে বরণ ও ক্রেস্ট বিতরণে আবাই এর দুই নারী নেত্রী দায়িত্বে ছিলেন। অনুষ্ঠানে চারজন শিল্পীর মধ্যে অনুষ্ঠানে দুইজন গায়ক এবং দুইজন গায়িকা গান পরিবেশন করেন। “আবাইকে” যদি কেউ পুরুষতান্ত্রিক হিসেবে উপস্থাপন করতে চান সেটা কোনভাবেই সঠিক হবে বলে আমরা মনে করিনা। ভবিষ্যতে আমরা “আবাই” এর সকল কর্মকান্ডে মহিলাদের অধিকতর অংশগ্রহণের সুযোগ তৈরি করতে চাই। এমতাবস্থায় আমাদের মহিলা বিষয়ক সম্পাদকের সাথে আগ্রহীদের যোগাযোগের অনুরোধ রইলো।

৬| খাবার আয়োজনঃ আবাই এর পক্ষ থেকে একটি গুণগত এ মানসম্মত অনুষ্ঠান উপহার দেওয়ার জন্য যে প্রেস্টিজিয়াস স্থানটি নির্ধারিত করা হয়েছিল সেখানে বাহির থেকে কোন খাবার পরিবেশন করার কোন অনুমতি ছিল না। অনুষ্ঠানের স্থলে উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো এবং অগণিত জনগোষ্ঠীর খাবার পরিবেশন ছিল একটি দুরহ ব্যাপার, তবে সাইনটোলজি কর্তৃপক্ষের আন্তরিকতার অভাব ছিল না। দুপুর ১ টা থেকে সন্ধ্যা ৮ টা পর্যন্ত খাবার সরবরাহ ছিল নিরবিচ্ছিন্ন, মাঝে মধ্যে খাবারের ঘাটতি দেখা দিলেও পরক্ষনেই তা পূর্ণ করা হয়েছে। সহস্র মানুষেরও বেশি অনুষ্ঠানে লম্বা লাইন থাকবে এটাই স্বাভাবিক। বিষয়টি যে কারুরই না বোঝার কিছু নয়। তারপরেও যে কোন ধরণের ত্রুটি ও সাময়িক অসুবিধার জন্য আবাই ক্ষমাপ্রার্থী।

৭। উপদেষ্টা কমিটিঃ আবাই কার্যকরী কমিটির সকল সদস্যের স্বাধীন প্রস্তাবের উপর ভিত্তি করে সমগ্র আয়ারল্যান্ড থেকে ১২৬ জন উপদেষ্টার একটি প্রাথমিক তালিকা গ্রহণ করা হয়। সমগ্র আয়ারল্যান্ড থেকে একটি সর্বজন গ্রহনযোগ্য উপদেষ্টা কমিটি গঠন ছিল একটি অত্যন্ত দুরূহ ব্যাপার। আমরা আশা করি আপনারা একমত হবেন যে ১২৬ জন সদস্য নিয়ে উপদেষ্টা কমিটি গঠন কোনভাবেই যুক্তিযুক্ত হতোনা। তাই এই তালিকা থেকে সর্বোচ্চ ২৫ জন সদস্যকে নিয়ে চূড়ান্ত তালিকা গঠনের দায়িত্ব দেয়া হয় কার্য্যকরি পরিষদের সদস্যদের মধ্য থেকে গঠিত একটি উপকমিটিকে। এই উপকমিটি কয়েকটি মানদন্ডের ভিত্তিতে চূড়ান্ত সংখ্যা নির্ধারনে সচেষ্ট ছিলেন, কিন্তু ২৫জনে এই সংখ্যা সীমিত করতে উপকমিটিকে হিমসিম খেতে হয়েছে। আরও কয়েকজন সদস্যকে যুক্ত রাখতে পারলে কার্য্যকরি কমিটির সদস্যরা নিজেদের পরিতৃপ্ত করতে পারতেন। আমরা মনে করি এই সমাজে আরও অনেকেই যোগ্যতার মাপকাঠিতে উত্তীর্ন। আবাই সমগ্র আয়ারল্যান্ডের একটি সংগঠন হিসাবে এই সংখ্যা পঁচিশের উর্ধে হওয়া উচিৎ বলে অনেকেই মনে করেছেন। এব্যাপারে পুনরায় আলোচনা করে সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করার দাবী উঠলে সেটা অবশ্যই পুনর্মূল্যায়ন করা সম্ভব বলে আমরা মনে করি। উপদেষ্টা পরিষদের নামের তালিকা প্রকাশে কোন ক্রম ব্যাবহার করা হয়নি, তালিকাটি র‍্যান্ডম (Random) হিসেবে প্রকাশিত হয়েছে। এই তালিকায় কোন নাম যুক্ত করার জন্য কোন ধরনের সামাজিক চাপ ছিলনা, কেউ কোন লবি করার কোন সুযোগ ছিলনা কিংবা বিত্তের কোন মানদণ্ডও ছিলনা। আমরা দৃঢ়ভাবে আশা করি সামাজিক মাধ্যমে দায়িত্ব জ্ঞানসম্পন্ন বক্তব্য উপস্থাপন করে নিজেদের সামাজিক মর্য্যাদাকে প্রত্যেকেই অক্ষুণ্ণ রাখতে সচেষ্ট হবেন।

পরিশেষে বলতে চাই অল বাংলাদেশী অ্যাসোসিয়েশন অফ আয়ারল্যান্ড (আবাই) আপনার আমার সকলের সংগঠন। আজ এই সংগঠন পরিচালনায় আমাদের আপনারা নিয়োজিত করেছেন। কোন এক ব্যাক্তির ইচ্ছা আর অনিচ্ছায় এই সংগঠন পরিচালিত হোক সেটা মোটেও কাম্য নয়। আপনাদের সমালোচনা আমাদের জন্য চলার পথে, আলো হিসাবে থাকবে। মনে রাখতে হবে শুধুমাত্র একপেশে সমালোচনা কোনভাবেই আলোকিত পথ দেখাবে না। আমরা যেন কেউ নিজেকে অপরিহার্য্য বলে মনে না করি। ভুল ভ্রান্তিকে সঠিক করে দিয়ে একসাথে আগামী দিনের পথ চলায় আসবে সাফল্য। এই সংগঠন একটি প্রতিনিধিত্ত্বশীল, অরাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠন। এই সংগঠন সকল ধর্ম-বর্ণের মানুষের জন্য যেভাবে সমান ঠিক একইভাবে সকলের মতামতকে গুরুত্ব প্রদান করা প্রতিনিধিদের দায়িত্ব। আমাদের অনিচ্ছাকৃত ভুল ত্রুটি ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখে, আসুন আমরা আবাইকে একটি কার্যকারী সংগঠন হিসেবে আয়ারল্যান্ডের মাটিতে প্রতিষ্ঠা করি।

ধন্যবাদান্তে:
আনোয়ারুল হক আনোয়ার
সাধারণ সম্পাদক
অল বাংলাদেশী অ্যাসোসিয়েশন অফ আয়ারল্যান্ড

Facebook Comments Box