শুধু পদের নেতা নয়, কাজের নেতা চাই

0
162

কেউ নেতৃত্বের গুন নিয়ে জন্মগ্রহণ করে, কেউ জন্ম নিয়ে নেতৃত্বের গুন অর্জন করে। যেভাবেই হোক না কেন নেতা হতে হলে নেতৃত্বের গুন থাকা অবশ্যই বাঞ্ছনীয়। নেতৃত্ব হচ্ছে এমনি এক গুরু দায়িত্ব যার ভার সবাই বহন করতে পারে না।

নেতা হচ্ছেন তিনি, যিনি ক্ষুদ্র দল থেকে শুরু করে জাতি, গোষ্ঠী, সমাজ, দেশের নেতৃত্ব দিয়ে থাকেন। নেতৃত্বাধীন গোষ্ঠী বা দল ছোট হোক আর বড়ই হোক, যখনি আপনি এক বা একাধিক ব্যক্তির দায়ভার গ্রহণ করবেন তখনই আপনার উপর এসে পড়বে নেতৃত্বের গুরু দায়িত্ব। আপনি যদি সুযোগ্য নেতা হন তাহলে আপনি ওই দায়িত্ব গুরুত্ব দিয়ে পালন করবেন এবং যার দ্বারা অন্যরা উপকৃত হবে।

নেতৃত্বের দায়িত্ব সবাই নেয় না, সবাই নেবার প্রয়োজনও নেই। কিন্তু আবার কাউকে না কাউকে দায়িত্ব নিতেই হয়। আপনি দায়িত্ব তখনই নিবেন, যখন মনে করবেন আপনার দ্বারা একটি জাতি, গোষ্ঠী কিংবা ওই সমাজ উপকৃত হবে। সমাজকে আপনার দেয়ার মত কিছু রয়েছে এবং সমাজের মানুষজন আপনার কাছে যে প্রত্যাশা করে আপনাকে নেতা বানাবেন সেই প্রত্যাশা পূরণে যদি আপনি নিজেকে যোগ্য মনে করেন, তাহলেই কেবল নেতৃত্বের ভার গ্রহণ করুন।

শুধুমাত্র একটা পদ অধিগ্রহণ করার জন্য কিংবা দশজনের কাছে পরিচিত হবার প্রত্যাশায় অথবা প্রতিহিংসাবশত কারো সাথে টক্কর দেবার বাসনায় নেতা হওয়ার চেয়ে না হওয়াই ভালো। কিন্তু তাই বলে কি অকালকুষ্মাণ্ড টাইপের নেতা দেশকে, জাতীকে কিংবা গোষ্ঠীকে নেতৃত্ব দিচ্ছে না? অবশ্যই দিচ্ছে। কিন্তু তা দেশ, জাতি ও মানুষের জন্য নিঃসন্দেহে অকল্যাণকর।

নেতৃত্বের দায়ভার সহজ বিষয় নয়। এতে নেতারা চাইলেই উনাদের মর্জিমত কিছু করতে পারেন না। সুযোগ্য নেতারা যাই করেন তা দশের কথা মাথায় রেখেই করেন। যারা নেতৃত্বের দায়ভার নিতে চান, উনারা নেতৃত্বের গুরুদায়িত্ব মাথায় রেখেই নিতে হবে। আর তা না হলে এই পথ না মাড়ানোই শ্রেয়। এতে অযোগ্য নেতৃত্ব থেকে জনগণ রক্ষা পাবে এবং নিজের মাথার বোঝাও হালকা থাকবে।

আয়ারল্যান্ডে আবার হতে যাচ্ছে কেন্দ্রীয় সংগঠন ‘’অল বাংলাদেশী এসোসিয়েশন অব আয়ারল্যান্ড’’ এর সাধারণ নির্বাচন। নির্বাচন উপলক্ষে ইতিমধ্যে সরগরম হয়ে উঠেছে বাংলাদেশী কমিউনিটির অঙ্গন। এরই মধ্যে ৫৪ জন সম্ভাব্য প্রার্থী মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করে নিয়েছেন। যা নিঃসন্দেহে শুভ লক্ষণ। ভোটারদের মাঝেও পরিলক্ষিত হচ্ছে উত্তেজনা।

আশা করব যে ৫৪ জন প্রার্থী নেতৃত্বে আসতে চান, উনারা ভেবে চিন্তেই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এর মাঝে অনেকেই হয়ত সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে মনোনয়নপত্র জমাদান থেকে বিরত থাকবেন। যারাই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন এবং বিজয়ী হয়ে কমিউনিটির হাল ধরবেন, আশা করব কমিউনিটি শুধু পদ আঁকড়ে থাকা নেতা নয়, সত্যিকার অর্থে কাজের নেতা পাবে।

এই কমিউনিটি সংগঠন মূলত স্বেচ্ছাসেবী (ভলেন্টিয়ার) সংগঠন। কাজ করার জন্য এতে থাকবেনা বাজেট, নির্বাচিত সদস্যগণ পাবেন না কোন বেতন ভাতা। সুতরাং এই সংগঠনের কাজে অবশ্যই থাকবে সীমাবদ্ধতা। কিন্তু তাই বলে এই অজুহাত গ্রহণযোগ্য হবে না যে, স্বেচ্ছাসেবী কাজ বলে একে অবহেলা করার কোন অবকাশ রয়েছে। যদি নেতাগণ মনে করেন, বেতন ভাতাবিহীন সংগঠন এর কোন কাজ নেই, তাহলে তো এই সংগঠনেরই কোন প্রয়োজন নেই। তাই নয় কি?

হ্যাঁ এইটা একটি অলাভজনক এবং ভলেন্টিয়ার সংগঠন এবং এটা মাথায় রেখেই আপনারা শপথবাক্য পাঠ করবেন। শপথবাক্য পাঠের পর যদি এই অজুহাত দাঁড় করান যে, নিজের খেয়ে বনের মোষ কেন তাড়াব, তাহলে এই সংগঠনের নেতৃত্বের দায়ভার নেয়া থেকে এখনই বিরত থাকুন।

যেহেতু এটা বেতনবিহীন নেতৃত্ব, সেহেতু সবাইকেই যার যার কর্ম করতে হবে, যার যার ব্যবসা, পরিবার দেখাশুনা করে চলতে হবে। এ নিয়ে কারো কোন দ্বিধা নেই। কিন্তু এরই মাঝে যারা নেতৃত্বের দায়ভার গ্রহণ করবেন, নিজেদের কর্মব্যস্ততার মাঝে কিছু সময় সমাজসেবার জন্য উৎসর্গ করতে হবে। যদি তা না পারেন তাহলে একজন কমিউনিটির নেতা এবং কমিউনিটির সাধারণ ব্যক্তির মাঝে কি তপাত থাকল?

যারা নেতা হবার প্রত্যয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন, উনারা অবশ্যই সবদিক বিবেচনা করেই করবেন বলে কমিউনিটির মানুষের বিশ্বাস। একটা কমিউনিটির জন্য একটা কেন্দ্রীয় সংগঠন কেন প্রয়োজন, তা কমিউনিটির সামনে প্রমাণ করার দায়িত্ব আপনার, যিনি হবেন আগামীর কোন একটি পদের কোন একটি নেতা। নির্বাচনে যতগুলো পদ ততগুলোর আলাদা আলাদা গুরুত্ব রয়েছে বিধায় পদ গুলো তৈরি। সুতরাং যিনি যেই পদের নেতৃত্বে থাকবেন, তিনি যেন ওই পদের সদ্ব্যবহার করেন। যে পদের জন্য নিজেকে যোগ্য মনে করেন, কেবলমাত্র ওই পদের জন্যই নির্বাচন করুন।

একটা কমিউনিটির জন্য একটা কেন্দ্রীয় সংগঠন কেন প্রয়োজন, তা কমিউনিটির সামনে প্রমাণ করার দায়িত্ব আগামীর নেতার

আপনি যদি সমাজসেবার জন্য তৃষ্ণার্ত থাকেন, মানুষের উপকারের জন্য যদি আপনার কিছু সময় ও অর্থ উৎসর্গ করতে ব্রত থাকেন, আপনার কোন দক্ষতা, জ্ঞান যদি কমিউনিটির কাজে লাগাতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ থাকেন, আপনার যদি সৎ, উদার, অহিংসাপরায়ন মনমানসিকতা থেকে থাকে তাহলে কমিউনিটির নেতা হিসেবে আপনাকে স্বাগতম।

শুধু পদের নেতা নয় রে ভাই, কাজের নেতা চাই।

 

ওমর এফ নিউটন
প্রধান বার্তা সম্পাদক
আইরিশ বাংলা টাইমস

Facebook Comments Box