লিমেরিকে অনুষ্ঠিত হল তরুণ প্রজন্মকে নিয়ে দিক-নির্দেশনামূলক অনুষ্ঠান

0
524

”তরুণ নামের জয়মুকুট শুধু তাহার – যার শক্তি অপরিমান, গতিবেগ ঝঞ্ঝার ন্যায়, তেজ নির্মেঘ আষাঢ় মধ্যাহ্নে মাতর্ন্ড প্রায়, বিপুল যাহার আশা, ক্লান্তিহীন যাহার উৎসাহ, বিরাট যাহার সাধ, মৃত্যু যাহার মুস্টিতলে’’। – কাজী নজরুল ইসলাম।

তরুণের শক্তিকে জাগ্রত করতে, তরুণের মেধাকে শানিত করতে, তরুণের সম্ভাবনাকে সম্ভব করতে, তরুণের পথের পাথেয় হতে, তরুণের এগিয়ে চলার সাথি হতে, তরুণকে আগামীর কর্ণধার হিসেবে গড়ে তুলতে বাংলাদেশ কমিউনিটি লিমেরিক পদক্ষেপ নিয়েছে নেক্সট জেনারেশন প্রজেক্ট। তারই অংশ হিসেবে গতকাল ২৭শে আগস্ট রবিবার অনুষ্ঠিত হল লিমেরিক ইয়ুথ ফোরাম অনুষ্ঠান।

নতুন প্রজন্মের একাংশ

স্ব স্ব অবস্থানে সফল ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে তরুণদের প্রতি দিক নির্দেশনামূলক অনুষ্ঠানের সফল সম্পন্ন হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে তরুণদেরকে শিক্ষা, ক্যারিয়ার, ধর্ম, রাজনীতি, স্বাস্থ্য, নৈতিকতা ও জীবনমুখী বিভিন্ন বিষয়ে উপদেশ, পরামর্শ ও দিক নির্দেশনা দেয়া হয়। মাইগ্রেন্ট কমিউনিটির তরুণ প্রজন্ম দুইটি সত্ত্বা বহন করে চলে, একটি হচ্ছে তার অরিজিনিটি আরেকটি হচ্ছে যে দেশে তার বসবাস। দুই সত্ত্বাকে সমন্বয় করে নতুন প্রজন্মকে নির্দেশনা দেয়া খুব সহজ বিষয় নয়। প্রত্যেক মাইগ্রেন্ট কমিউনিটির অভিবাবককেই হিমশিম খেতে হয়ে সন্তানদেরকে সঠিক নির্দেশনা প্রদান করতে। এটাও ছিল অনুষ্ঠানের একটা মূল বিষয় কিভাবে তার অরিজিনিটি ও বর্তমান স্থানের সাথে সমন্বয় করতে পারে।

আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ ও ইনফ্লুয়েন্সার

লিমেরিকে তরুণদের জন্য ”ইয়ুথ ফোরাম” নামে একটি ফোরাম গঠন করে তুলে দেয়া হয় তরুণদের হাতে। কমিউনিটির বিভিন্ন উদ্যোগে, কাজে ও প্রয়োজনে নতুন প্রজন্মকে সম্পৃক্ত করা ও তাদের মধ্যে লিডারশিপ স্কিল গড়ে তোলাই হচ্ছে এই ফোরামের উদ্দেশ্য। উক্ত বাংলাদেশ কমিউনিটি লিমেরিক এর ওয়েবসাইট www.bdlimerick.com এর উন্মোচন করা হয়। ওয়েবসাইটের ডেভলপমেন্টের দায়িত্বও ইয়ুথ ফোরামের সদস্যদের প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে লিভিং চার্টিফিকেট পরীক্ষায় সফলভাবে উত্তিন্ন ১০ জন লিমেরিকের ছাত্রছাত্রীদেরকে পরিচয় ও শুভেচ্ছা প্রদান করা হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানটিতে শুধুমাত্র লিমেরিকের ১৫ বছরের উর্ধে তরুণ, একজন করে অভিভাবক এবং সনাম্নিত স্পিকারগন শুধুমাত্র লিমেরিকের মাঝেই সীমাবদ্ধ ছিল। অনুষ্ঠানের উদ্দেশ্য সফল করতে ১৪ বছরের নিছে বাচ্চাদেরকে না নিয়ে যেতে এবং অবিভাবকদের মধ্যে একজন অবিভাবককে আসার অনুরোধ জানানো হয়েছিল।

অনুষ্ঠানে আগত তরুণ তরুণী, অবিভাবক ও অতিথিবৃন্দ অনুষ্ঠানের ব্যাপারে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন এবং ভবিষ্যতেও এ ধরণের অনুষ্ঠানের প্রত্যাশা করেন। শিক্ষণীয় এমন অনুষ্ঠান আগামী প্রজন্মকে সঠিক দিক নির্দেশনা প্রদান করতে পারেবে বলে অনেকেই মনে করেন।

উপস্থিত অতিথি

আমন্ত্রিত অতিথি, প্রধান স্পিকার ও গেস্ট স্পিকারদের মধ্যে যারা ছিলেনঃ

প্রফেসর সৈয়দ আনসার তোফায়েল
হেড অফ ডিপার্টমেন্ট, ডিপার্টমেন্ট অফ পিজিক্স, ইউনিভার্সিটি অফ লিমেরিক
রিসার্সারঃ ম্যাটারিয়ালস এন্ড সার্ফেস পিজিক্স অফ ম্যাগনেটিক, এলেক্ট্রনিক এন্ড বায়োম্যাটারিয়ালস ইন ইন্টারফেস অফ বায়োলজি, মেডিসিন এবং কেমেস্ট্রি।
শিক্ষাগত ইতিহাসঃ BSc & MSc in BUET, PhD in University of Limerick

ডঃ ইসমেত জাকিয়া রহমান
প্রাক্তন অধ্যাপক ও গবেষক, ইউনিভার্সিটি অফ লিমেরিক
এমিরেটাস প্রফেসর, ইউনিভার্সিটি অফ লিমেরিক
শিক্ষাগত ইতিহাসঃ MSc Dhaka University,
রিসার্সারঃ পদার্থ বিজ্ঞান ও মহাশূন্য গবেষণা, সাউদাম্পটন ইউনিভার্সিটি

ডাঃ শামিম উদ্দিন আহমেদ
রেজিস্ট্রারার, একিউট মেডিসিন ইউনিট (AMU)
লিমেরিক রিজিওনাল হাসপাতাল

ডাঃ আবদুল মতিন
কনসালটেন্ট, ENT, Head & Neck Surgeon
লিমেরিক রিজিওনাল হাসপাতাল

ফয়সাল ইসলাম
ধর্মীয় স্পিকার
Former researcher of University of Limerick
ব্যাবসায়ীঃ Owner of Jada Perfume.

ডঃ সাইফুল ইসলাম
Researcher: Dairy Processing Technology and Dept of Chemical Science at University of Limerick.

ডঃ শাহিন সরকার
Teacher/Lecturer: Department of Applied Science at Technological University of Shannon (TUS)

ইয়ং ইনফ্লুয়েন্সারদের মধ্যে ছিলেনঃ

বিয়ানা খান
Product Quality Specialist (Medicine)
Regeneron

আলি শাহরিয়ার তন্ময়
Software Engineer, Technical Consultant
CSG International

রাজনৈতিক ইনফ্লুয়েন্সরদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেনঃ

আনোয়ারুল হক আনোয়ার
ব্যাবসায়ীঃ সত্ত্বাধিকারী ইস্তানবুল কেবাব
সাধারণ সম্পাদকঃ অল বাংলাদেশি এ্যাসোসিয়েশন অফ আয়ারল্যান্ড (ABAI)

সমাপনি বক্তব্য ও নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেনঃ

কাউন্সিলর আজাদ তালুকদার
সাবেক ডেপুটি মেয়র, কাউন্সিলর ও কাহারলক
লিমেরিক সিটি ও কাউন্টি কাউন্সিল

অনুষ্ঠানটির ধারণা ও সার্বিক তত্ত্বাবধান করেন জনাব আমিনুল ইসলাম রনি। সহযোগিতায় ছিলেন জনাব শাহ্‌ আজমল হোসেন, জনাব এ কে আজাদ, জনাব ওমর ফারুক নিউটনসহ কমিউনিটির ব্যক্তিবর্গ।

ভেন্যু সম্বন্ধীয় সহযোগিতা করেন জনাব মনিরুল ইসলাম মনির ও সজীব হোসাইন। অনুষ্ঠানটি ডেকোরেট করতে সহযোগিতা করেন লিমেরিক ইয়ুথ ফোরাম। অনুষ্ঠান ম্যানেজারের দায়িত্বে ছিলেম শম্পা লিলি ও সঞ্চালনা করেন ওমর ফারুক নিউটন।

অতিথিদের একাংশ

অনুষ্ঠানটি স্পন্সর করে লিমেরিকের নিম্নোক্ত ১২ টি ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানঃ

ইস্তানবুল কেবাব, ব্যাম্বো স্পাইস ইন্ডিয়া রেস্টুরেন্ট, রিক্রুট ওয়ার্ল্ড, লিলি’স ফ্যাশন, স্টুডেন্ট ক্যাম্পাস, ফুডল্যান্ড, কেবাব কর্নার, পিজা বাইটস, হেলো পিজা, সোয়াদ ইন্ডিয়ান রেস্টুরেন্ট, জাডা ফারফিউম, ইন্ডিয়া ফুডস।

এছাড়াও কমিউনিটির বিভিন্ন স্তরের ব্যক্তিবর্গ ও অভিবাবকগন অনুষ্ঠানটি সফল হতে যথাসাধ্য সহযোগিতা করেন।

ব্যতিক্রমী এই অনুষ্ঠানের সফল সমাপ্তি হয়ত আগামীতে সুফল বয়ে নিয়ে আসতে সহযোগিতা করবে।

Facebook Comments Box