মুমূর্ষু মিজানুর রহমান ও পরিবারকে দেখতে ওয়াটারফোর্ড হাপাতালে আইরিশ বাংলা টাইমস পরিবার

0
469

আপনারা ইতোমধ্যে আইরিশ বাংলা টাইমসের পূর্ববর্তী প্রতিবেদনের মাধ্যমে জানতে পেরেছিলেন যে, ওয়াটারফোর্ডের বাসিন্দা জনাব মিজানুর রহমান এক সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হয়ে গুরুতর অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে ছিলেন।

তিনি দীর্ঘদিন হাসপাতালে মুমূর্ষ অবস্থায় দিনযাপন করছেন। পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী গত ৪ অক্টোবর আইরিশ বাংলা টাইমস টিম জনাব মিজানুর রহমান এর স্বাস্থ্যের সর্বশেষ অবস্থান জানতে এবং আইরিশ বাংলা টাইমস এর সম্পাদক মন্ডলীর বার্ষিক সাধারণ সভা সম্পন্ন করার উদ্দেশ্যে পত্রিকার সম্পাদক মন্ডলীর সদস্যরা ওয়াটারফোর্ডে সমবেত হন। সাধারণ সভা শেষে জনাব মিজান কে দেখতে আইরিশ বাংলা টাইমস পরিবারের জনাব আব্দুর রাহিম ভূঁইয়া, জনাব ওমর এফ নিউট, জনাব কবির আহমদ, জনাব শওকত অলি খান মাসুম ও নাসির খান সাকি ওয়াটারফোর্ড ইউনিভার্সিটি হাসপাতাল পরিদর্শন করেন এবং পরিদর্শনকালে কর্তব্যরত চিকিৎসকের নিকট তার শারীরিক পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে চান।

স্থানীয় সূত্র মতে জনাব মিজানুর রহমান গত ৮ই সেপ্টেম্বরে ওয়াটারফোর্ডের বেলিব্ৰিজ্ঞান সাউন্ড স্টোর এর সামনে পেডেস্ট্রিয়ানাইজড জেব্রা ক্রসিং পার হওয়ার সময় একটি দ্রুতগামী গাড়ি তার উপর দিয়ে সজোরে চালিয়ে পালিয়ে যায়। তাৎক্ষণিক জনাব মিজানুর রহমান মাটিতে লুটিয়ে পড়েন ও জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। এই ঘটনায় তার ডান পায়ের হাড় ভেঙ্গে যায় ও মস্তিষ্কে প্রচন্ড পরিমানে আঘাত প্রাপ্ত হন।

এই দুর্ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী পথচারীরা তাকে সাথে সাথে ওয়াটারফোর্ড হাসপাতালের জরুরী বিভাগে ভর্তি করান। সেখানে তাকে প্রাথমিক চিকিতসা দিয়ে মস্তিষ্কের সার্জারির জন্য কর্ক ইউনিভার্সিটি হাসপাতালে ট্রান্সফার করে দেন। মস্তিষ্কে অস্ত্রপচারের পর সেখানে তাকে ICU তে দীর্ঘদিন প্রায় তিন সপ্তাহের মত নিবিড় পরিচর্যা ও ভেন্টিলেটরের মাধ্যমে শ্বাসপ্রশ্বাস দেওয়া হয়। গত ২৮ই সেপ্টেম্বর তার কিছুটা চেতনা ফিরে আসলে ভেন্টিলেটর খুলে নিয়ে স্বাভাবিক ভাবে শ্বাসপ্রশ্বাস নিতে ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়। এখনো তিনি রেসপন্স করার মতো অবস্থায় ফিরে আসেন নি। ভীষণ শারীরিক যন্ত্রনায় ভুগছেন তিনি। চিকিৎসকগণ তাঁকে এখনো নিবিড় ভাবে পর্যবেক্ষণ করছেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে ওয়াটারফোর্ডের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, পরিচিত মুখ ও বিশিষ্ট সমাজ কর্মী জনাব শামীম কবির ঐদিন আইরিশ বাংলা টাইমস টিম কে সার্বিক সহযোগিতা করেন এবং উনার সঙ্গে আলাপ চারিতায় আমরা জানতে পারি, তিনি অসুস্থ মিজানুর রহমানের নিয়মিত খবর রাখছেন এবং তার পরিবারকে আন্তরিক ভাবে সান্তনা ও সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছেন। পাশাপাশি আরও যারা তার পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন সকলের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞতা জানাই।

জনাব মিজানুর রহমান তিন সন্তানের জনক। তার বয়স অনুমানিক ৪৫ বছর, তার বড় কন্যার বয়স ১৯ বছর ও বাকি দুই সন্তানের বয়স ৫ এবং ৮ বছর। তার স্ত্রী সকলের নিকট তার স্বামীর সুস্থতার জন্য দোয়ার আহ্বান করেছেন।

তিনি দীর্ঘদিন ডাবলিনে বসবাস করেছেন। ডাবলিনের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী জনাব আব্দুল আউয়াল এর ভায়রা হন এবং কর্কের জনাব কামাল চোধুরীর ছোট ভগ্নিপতি হন।

আল্লাহর নিকট তাঁর স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসার জন্য দোয়া করি। বাংলাদেশী সবাইকে পথ পারাপার হওয়ার সময় দুই দিক থেকে আগত গাড়ির গতির দিকে লক্ষ্য রাখতে অনুরোধ করছি। এমনকি জেব্রা ক্রসিং ও পেডেস্ট্রাইনাইজড ক্রসিং পার হওয়ার সময়ও বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন আহ্বান করি।

Facebook Comments Box