কোভিড সহায়তার মাধ্যমে মিয়ানমার ও ভারত সম্পর্কের নতুন মাত্রা

0
245

কভিড সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে প্রতিবেশী দেশ মিয়ানমারকে সাহায্য করতে তৎপর হলো ভারত। মিয়ানমার নেত্রী অং সান সু চির হাতে তিন হাজার ভায়াল রেমডেসিভির তুলে দিলেন ভারতের সেনাপ্রধান মনোজ মুকুন্দ নারাভানে এবং বিদেশসচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা।

মিয়ানমারে ভারতীয় দূতাবাস থেকে টুইট করে জানানো হয়, কভিড পরিস্থিতি নিয়েও অং সান সু চির সঙ্গে বৈঠক হয়েছে শ্রিংলার। করোনার ওষুধ অ্যান্টি-রেট্রোভিয়াল রেমডেসিভিরের প্রায় তিন হাজার ভায়াল তুলে দেওয়া হয়েছে তার হাতে।

মিয়ানমারে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় ইন্দোনেশিয়া ও ফিলিপিন্সের পরেই সংক্রমণের নিরিখে রয়েছে মিয়ানমার। সেখানকার ভারতীয় দূতাবাসের পক্ষে জানানো হয়েছে, এই পরিস্থিতিতে ভারতের দেওয়া রেমডেসিভির ওষুধ পারস্পরিক সম্পর্ককে আরো দৃঢ় করবে তাই নয়, পাশে থাকার বার্তাও দেবে।

দু’দিনের সফরে মিয়ানমারে গিয়েছিলেন সেনাপ্রধান ও বিদেশসচিব শ্রিংলা। প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা সম্পর্কিত বিষয়ে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতা নিয়ে আলোচনা হয়। রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়েও ভারত-মিয়ানমার দুই দেশের পররাষ্ট্রসচিব পর্যায়ের বৈঠক হয়েছে। তবে আলোচনার ফল কী হয়েছে তা নিয়ে জানা যায়নি। ভারতের পক্ষ থেকে কভিড যুদ্ধে মিয়ানমারকে সাহায্য করার কথাই কেবল বলা হয়েছে।

করোনা পরিস্থিতিতে একাধিক প্রতিবেশী দেশের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে ভারত। কোথাও পাঠানো হয়েছে পিপিই কিট থেকে সুরক্ষার সরঞ্জাম, আবার কোথাও করোনার ওষুধ। চিনের সঙ্গে সীমান্ত সংঘাতের আবহেই বাংলাদেশ সঙ্গেও সম্পর্কের উন্নতিতে জোর দিয়েছে ভারত।

সম্প্রতি পররাষ্ট্রসচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা ঢাকা সফরে দুই দেশের সম্পর্কে গতি আনার চেষ্টা করেছেন। করোনার টিকা নিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে আলোচনাও চলছে। ভারত জানিয়েছে, অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে বাংলাদেশেই প্রথম টিকা পাঠানো হবে।

Facebook Comments Box