আবাসিক ভবনে ভয়াবহ আগুন! মৃত্যু ৪৬ জনের, বাড়তে পারে মৃতের সংখ্যা

0
422

আবাসিক ভবনে ভয়াবহ আগুন! মৃত্যু ৪৬ জনের, বাড়তে পারে মৃতের সংখ্যা

জানা গিয়েছে, ৪০ বছরের পুরনো এই ভবনটি। কী ভাবে এই আগুন লাগার ঘটনা ঘটল তা এখনও নিশ্চিত করে বলতে পারছে না অগ্নিনির্বাপণ বিভাগ।

ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড তাইওয়ানের কাওসিউং শহরে। ছবি টুইটার।

ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড (Fire) তাইওয়ানের (Taiwan) কাওসিউং শহরে। এখনও অবধি যা খবর, জীবন্ত দগ্ধ হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন ৪৬ জন। আহত বহু। তাইওয়ানের দক্ষিণের শহর কাওসিউং। সেখানকারই একটি বহুতলে বৃহস্পতিবার আগুন লাগার ঘটনা ঘটে। ভয়াবহ আগুনে এক লহমায় শেষ হয়ে যায় এতগুলো প্রাণ!

কাওসিউংয়ের অগ্নিনির্বাপণ বিভাগের তরফে জানানো হয়েছে, ১৩ তলা ওই ভবনে এদিন ভোর তিনটে নাগাদ আগুন লাগে। ৫৫ জনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ১৪ জন মৃত। এর পরেও মৃতের সংখ্যা হু হু করে বেড়েছে। তবে সেই মৃত্যু মিছিল কততে গিয়ে থামবে, তা এখনই স্পষ্ট করে বলতে পারছে না তাইওয়ান সরকার।

প্রাণহানির পাশাপাশি ওই বহুতলেরও বিপুল ক্ষতি হয়েছে বলেই জানা গিয়েছে। আগুন মুহূর্তে ধ্বংসাত্মক রূপ নেয়। একের পর এক তলে আগুন ছড়াতে শুরু করে। ঘরগুলি একেবারে পুড়ে ছাই হয়ে গিয়েছে।

জানা গিয়েছে, ৪০ বছরের পুরনো এই ভবনটি। কী ভাবে এই আগুন লাগার ঘটনা ঘটল তা এখনও নিশ্চিত করে বলতে পারছে না অগ্নিনির্বাপণ বিভাগ। তাইওয়ানের একটি সংবাদসংস্থার তরফে যে ভিডিয়ো ফুটেজ সামনে এসেছে, তাতে দেখা যাচ্ছে ওই বহুতল থেকে অনর্গল কালো ধোঁয়া কুণ্ডলী পাকিয়ে বাইরের দিকে বেরিয়ে আসছে।

সঙ্গে সঙ্গে দমকলে খবর দেওয়া হয়। সর্বতভাবে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে লড়াই চালিয়ে যান দমকল কর্মীরা। ৭০টির বেশি দমকলের গাড়ি এসে পৌঁছয় ঘটনাস্থলে। দমকল কর্মীরা জানান, সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সপ্তম তল থেকে এগারো তল। সবচেয়ে বেশি মৃত্যুও হয়েছে এই পাঁচ তলের বাসিন্দাদের। কাওসিউং পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, এই আবাসনে মূলত বেশির ভাগ পরিবারই নিম্ন মধ্যবিত্ত। প্রায় ১০০ জন থাকতেন এখানে। শুধু পরিবারই নয়, একাধিক তল ব্যবসায়ীক কাজেও ব্যবহার করা হতো।

স্থানীয়রা জানান, হঠাৎই এলাকায় বিকট শব্দ শোনা যায়। মনে হচ্ছিল, কোনও বিস্ফোরণ হচ্ছে। প্রাথমিক ভাবে তাঁরা ভয় পেয়ে যান। কিন্তু পরে বেরিয়ে আসতেই ভয়ঙ্কর সেই দৃশ্য দেখে আঁতকে ওঠেন তাঁরা। চোখের সামনে দাউ দাউ করে জ্বলছে ভবনটি।

কাওসিউংয়ের মেয়র চেন চি-মাই বলেন, এই ভবনের একটা অংশ পরিত্য়ক্ত ছিল। এক সময় এখানে রেস্তোরাঁ, সিনেমা হলও ছিল। কিন্তু ধীরে ধীরে সে সব বন্ধ হয়ে যায় বহুদিন। এর পর থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে ছিল সেটি। কী ভাবে এই আগুন লাগল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

তথ‌্যসুত্র:
https://www.thejournal.ie/taiwan-apartment-building-fire-deaths-5574290-Oct2021/

Facebook Comments Box