অমর একুশে বইমেলা ২০২৩ , আয়ারল্যান্ড

0
660

গত ২৮ মে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল আয়ারল্যান্ডের রাজধানী ডাবলিনের DCU তে তৃতীয় বারের মতো অমর একুশে বইমেলা ২০২৩ ।

বেলা ১টার দিকে আয়ারল্যান্ডে বই মেলার উদ্যোক্তা সৈয়দ মোস্তাফিজুর রহমান আনুষ্ঠানিকভাবে মেলার উদ্বোধন ঘোষণা করেন ।

মেলাতে প্রায় ১৪/১৫ টি বুক স্টল , ১৫/১৬ টি খাবারের স্টল , দুটি কাপড়ের স্টল এবং একটি চায়ের স্টল ছিল ।

মেলার মূল আকর্ষণ ছিল লেখক , কবি , সাহিত্যিক এবং পাঠকদের সরব উপস্থিতি । আয়ারল্যান্ড এবং ইংল্যান্ড প্রবাসী অনেক গুণী লেখক , কবি , সাহিত্যিক তাদের প্রকাশিত বই নিয়ে মেলায় উপস্থিত হয়ে পাঠক এবং মেলায় আগত অতিথিদের সঙ্গে শুভেচ্ছা এবং কুশল বিনিময় করেন । বই মেলায় আয়ারল্যান্ড প্রবাসী কবি এবং লেখকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন : ডা. আরমান রহমান, ড. জাকিয়া রহমান, আয়শা আহমেদ ( ইংল্যান্ড প্রবাসী ) , সাজেদুল চৌধুরী রুবেল , মেহদী হাসান, কামরুন নাহার রুনু, লতা উসমানী, ইশরাত আরা লাইজু, রেজিনা মনি প্রমুখ।

এছাড়া মেলায় উপস্থিত ছিলেন আইরিশ সরকারের মন্ত্রী জ্যাক চেম্বার এবং ডাবলিন সিটি ইউনিভার্সিটির প্রাক্তন প্রফেসর সেলিম হাসমী ।

মেলাতে ছোট বাচ্চাদের নির্মিত আর্ট এবং ক্রাপ্টের প্রদর্শনীর একটি গ্যালারি ছিল । আমাদের নতুন প্রজন্মের অনেক বাচ্চারা প্রদর্শনীতে অংশগ্রহন করে । তাছাড়া বই মেলাতে আমাদের শিশুরা বাংলায় কবিতা আবৃত্তি , সঙ্গীত এবং নৃত্য পরিবেশন করে ।

মেলায় আগত কবি , সাহিত্যিকবৃন্দ তাদের স্বরোচিত কবিতা আবৃত্তি এবং গল্প পড়ে শুনান । পাশাপাশি অনেক স্থানীয় শিল্পীবৃন্দ কবিতা আবৃত্তি এবং সঙ্গীত পরিবেশন করেন ।

 

 

 

এবারের মেলাতে প্রথমবারের মতো একজন আইরিশ সঙ্গীত শিল্পী , ‘ আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো ‘ গানটি আইরিশ ভাষায় পরিবেশন করেন ।

 

লন্ডনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে মাননীয় হাই কমিশনার অনলাইনে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সংযুক্ত হয়ে মেলায় আগত অতিথিদের উদ্দেশ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন এবং বই মেলা আয়োজনের জন্য আয়োজকদের ভূয়সী প্রশংসা করেন ।

বাংলাদেশ থেকেও অনলাইনে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনেক কবি , সাহিত্যিক মেলায় আগত অতিথিদের উদ্দেশ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন ।


মেলায় পুরুষদের পাশাপাশি উল্লেখযোগ্য নারী এবং শিশু কিশোরদের ঊপস্থিতি মেলার আকর্ষণকে বৃদ্ধি করেছে ।

মেলায় লেখক ,পাঠক এবং দর্শকদের সরব উপস্থিতি মেলার প্রাণকে বৃদ্ধি করেছে এবং বইমেলা যেন একটি মিলন মেলায় পরিনত হয়েছে ।

মেলায় আগত অতিথিবৃন্দ মেলার সার্বিক ব্যবস্থাপনায় সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং অনেকে মেলার জন্য আরোও বড় স্থান প্রয়োজন বলে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন । আয়োজকগণ ভবিষ্যতে বইমেলা আয়োজনে এ বিষয়টি বিশেষ বিবেচনায় রাখবেন বলে উল্লেখ করেন । আয়োজক কমিটির পক্ষথেকে সৈয়দ মোস্তাফিজুর রহমান এবং মুহাম্মদ মোস্তফা মেলায় আগত সবাইকে ধন্যবাদ জানান ।

কবির আহমদ বাবুল
আইরিশ বাংলা টাইমস

Facebook Comments Box